Header Ads

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা আজকের এই ব্লগে আপনাদেরকে দেখাবো আপনার মোবাইল অথবা কম্পিউটার এর যেকোন ফাইল, ফোল্ডার, আপনার ছবি, অডিও, ভিডিও, অথবা যে কোন ইনফর্মেশান আপনি যদি লুকিয়ে রাখতে চান বা হাইড করে রাখতে চান তাহলে সেটা মাত্র একটা ক্লিকের মাধ্যমে মাত্র ১ সেকেন্ডে হাইড করতে পারবেন। বা লুকিয়ে রাখতে পারবেন। কোন প্রকার অ্যাপ্লিকেশন এর সাহায্য ছাড়াই এবং চাইলে যেকোনো সময় আবার এটাকে আন-হাইড করতে পারবেন ১ ক্লিকেই। আমাদের অনেক প্রয়োজনীয় অনেক কিছু থাকে অনেক গোপন অনেক কিছু থাকে যেগুলো আমরা মোবাইলে লক করে রাখতে চাই এর জন্য আমরা প্লে স্টোর অথবা ইউটুবে সার্চ করে বিভিন্ন হিডেন সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকি যেগুলোতে পাসওয়ার্ড দিয়ে আমরা লক করে রাখি কিন্তু পরবর্তীতে দেখা যায় আমাদের অ্যাপ্লিকেশন টা আনইন্সটল হয়ে গেছে অথবা অ্যাপ্লিকেশন টা কাজ করতেছে না তখন আমাদের প্রয়োজনীয় সকল হিডেন ফাইল গুলো আমরা হারিয়ে ফেলি। 



এই যে কাজগুলো আমরা করে থাকি এগুলো সম্পূর্ণ ভুল। এই ভাবে যদি আপনি আপনার গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলি লক করে রাখেন সেগুলো আপনি খুব সহজেই হারিয়ে ফেলবেন নিজের অজান্তে। আজকের এই ব্লগে এই কমন প্রবলেমটার সোলিউশন নিয়ে আপনাদের সাথে আছি আমি এস কে স্বাধীন আপনারা আছেন bdit24.কম তো চলুন শুরু করা যাক।


প্রথমত আপনাদের কিছু ওয়ার্নিং দিয়ে নি অনেকে প্লে স্টোর থেকে বিভিন্ন এপ্লিকেশন ব্যবহার করেন যেগুলোর মাধ্যমে আপনাদের প্রয়োজনীয় ছবি অডিও ভিডিও অথবা যেকোন ফাইল লক করে রাখেন সেখানে পাসওয়ার্ড সেট করে রাখেন পরবর্তীতে হয়তো পাসওয়ার্ডটা আপনি ভুলে গেছেন অথবা অ্যাপ্লিকেশন কাজ করতেছে না কিংবা অ্যাপ্লিকেশন টা আনইনস্টল করে ফেলেছেন এর ফলে আপনার প্রয়োজনীয় ইনফর্মেশন ফাইলগুলো কিন্তু আপনি হারিয়ে ফেলছেন সারা জীবনের জন্য। এ ফাইল গুলোর ভিতর আপনার অনেক প্রয়োজনীয় জিনিস থাকতে পারে অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনিস থাকতে পারে সেগুলো যদি একবার হারিয়ে ফেলেন এটা অপূরণীয় ক্ষতি আপনার জন্য। তাই আপনি যদি এটা পার্মানেন্ট কোনো সলিউশন নিতে চান, তাহলে আজকের ব্লক টা কন্টিনিউ করতে থাকেন। আজকের এই ব্লগে আপনাদেরকে দেখাবো মাত্র এক ক্লিকের মাধ্যমে যেকোন ফাইল এবং ফোল্ডার কিভাবে হিডেন করে রাখবেন এবং সেটাকে মাত্র এক ক্লিকের মাধ্যমে পুনরায় আপনি আবারো আনহাইড করতে পারবে।ন বেশি কথা না বলে চলুন সরাসরি কাজে চলে যাই।



খুব সহজে মোবাইল এবং কম্পিউটারের মাধ্যমে যে কোন ফাইল বা ফোল্ডার হাইড করে ফেলতে পারবেন। মোবাইল দিয়ে যদি আপনি ফাইল এবং ফোল্ডার লক করতে চান তাহলে যেটা করতে হবে সরাসরি আপনার মেমোরিতে চলে যাবেন। গ্যালারি থেকে কাজটা কিন্তু আপনি করতে পারবেন না। অবশ্যই আপনার ফোন মেমোরি অথবা এসডি কার্ড এর ভিতরে চলে যাবেন। গিয়ে এখান থেকে আপনাকে নির্বাচন করতে হবে যে ফাইলটা আপনি হাইড করতে চাচ্ছেন সেটা হতে পারে অডিও-ভিডিও-ছবি কিংবা যেকোন ধরনের ফাইল যে ফাইলটা আপনি হাইড করতে চাচ্ছেন সেই ফাইলটার উপরে ট্যাপ করে ধরে রাখবেন ফাইল টা সিলেক্ট হয়ে যাওয়ার পরে নিজ থেকে (...থ্রি ডট) আইকনে ক্লিক করবেন এবং এখান থেকে Rename অপশনে চলে যাবেন, এখান থেকে ওই ফাইলটার যে নাম তার প্রথমে একটা (.ডট) লাগিয়ে দিবেন, দিয়ে সেভ করে দিবেন। তাহলে দেখতে পারবেন আপনার এই ফাইলটা অথবা ফোল্ডার টা অটোমেটিকলি ডাইড হয়ে গিয়েছে। এবং আপনি এটা দেখতে পারছেন না এবং এই ফাইল বা ফোল্ডার এর ভিতরে যতগুলো ফাইল রয়েছে এই ফাইলগুলো আর কোথাও শো করবে না। 


যদি এই ফাইলটাকে আপনি পুনরায় আনহাইড করতে চান তাহলে আপনাকে যেটা করতে হবে,, ফাইল ম্যানেজার এ সেটিং থেকে Show Hidden File অপশনটাকে টিক মার্ক করে দিতে হবে এটা যখন আপনি অন করে দিবেন অন করে দেওয়ার পরে যতগুলো হাইট ফাইল আপনার ফোনে বা মেমোরিতে রয়েছে সবগুলো আপনি দেখতে পারবেন। আপনার হিডেন করা ফাইল টা আপনি চাইলে এখান থেকে ব্যবহার করতে পারবেন অথবা আপনি যদি চান এই ফাইলটা অথবা ফোল্ডারটা কে পুনরায় আনহাইড করতে তাহলে এই ফাইলটা টেপে ধরে সিলেক্ট করে এরপর (...থ্রি ডট) মেনু থেকে Rename এ ক্লিক করবেন এবং প্রথমে যে(.ডট) টা লাগিয়ে দিয়েছিলেন এটাকে কেটে দিয়ে সেভ করে দিবেন। তাহলে দেখতে পারবেন আপনার ফাইল এবং ফোল্ডার টা পুনরায় আনহাইড হয়ে আগের মত অপশনে চলে আসছে।


এবার যদি আপনি কম্পিউটার দিয়ে কাজটা করতে চান তাহলে ঠিক একইভাবে আপনাকে করতে হবে যে কোন ফাইল অথবা ফোল্ডার রিনেম করে তার আগে একটা .ডট লাগিয়ে দিলেই অটোমেটিকলি ফাইল এবং ফোল্ডার হাইড হয়ে যাবে পুরনায় সেটাকে আনহাইড করতে চাইলে একইভাবে রিনেম এ গিয়ে .ডট টা কেটে দেওয়া মাত্রই আপনার ফাইলটা আনহাইড হয়ে যাবে। 


এটাই হলো একমাত্র ফাইল এবং ফোল্ডার হাইড করার সিকিওর সিস্টেম। যদি আপনি আপনার হাইড করা ফোল্ডার অথবা ফাইলগুলো হারাতে না চান, তাহলে আপনি এই মাধ্যমে আপনার ফাইল এবং ফোল্ডার গুলোকে হাইড করে রাখতে পারেন কম্পিউটার এবং মোবাইলের সাহায্যে। এবং এটা মাত্র ৩০ সেকেন্ড এর ভিতর পুরা কাজ আপনি কমপ্লিট করতে পারবেন। 


নিচে ধাপে ধাপে স্ক্রিনশট দিয়ে বুজিয়ে দিয়েছি।


Step 1



Step 2



Step 3



Step 4




See..



Step 1



Step 2



Step 3



Step 4



Step 5



Step 6



                                                                          Done.                                


আশা করি আজকের এই ব্লগের ভিতরে আমি আপনাদেরকে বিস্তারিত বোঝাইতে পারছি কিভাবে কম্পিউটার এবং মোবাইলের মাধ্যমে যেকোন ফাইল অথবা ফোল্ডারকে অথবা আপনার প্রয়োজনীয় যেকোনো জিনিস হাইড করে রাখবেন। যদি আজকের এই ব্লগটা আপনার ভালো লেগে থাকে, বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। পরবর্তীতে আমাদের ব্লগে আসার জন্য আপনাকে আমন্ত্রণ রইল। ভালো থাকবেন,, নিজের খেয়াল রাখবেন!! ধন্যবাদ।

2 মন্তব্য

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো